Kivabe Bidesh Jabo? kivabe Binane uthbo? |কিভাবে বিদেশ যাবেন ও কিভাবে  বিমানে উঠবেন|Immigration Pass interview BD

Kivabe Bidesh Jabo? kivabe Binane uthbo? |কিভাবে বিদেশ যাবেন ও কিভাবে  বিমানে উঠবেন|Immigration Pass interview BD



বিদেশ যাওয়ার আগে যেটা জানা প্রয়োজন।


বিদেশে যাওয়ার পূর্বে আপনি ভালভাবে আপনার ব্যাগ গুছিয়ে নিবেন ।
ব্যাগ গোছানো সময় মনে রাখবেন,  চেকিং ব্যাক । যে এয়ারলাইন্সের কাউন্টারে জমা দিতে হবে সেখানে কোনো টাকা-পয়সা গহনা বা অন্য কোনো দামি জিনিস টিকিট বা চাকরির কাগজপত্র রাখা যাবে না। এসব জিনিস একটা ছোট ব্যাগে নিজের সাথে রাখবেন।
আপনি চেপে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের একসেপ্ট ফটোকপি আধার চেকিং ব্যাগে রাখতে পারেন। আর আপনার বাড়িতেও প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের একসেপ্ট ফটোকপি রেখে যেতে ভুলে যাবেন না ।  

বিদেশ যাওয়ার সময় কিছু জিনিস ব্যাগে বা নিজের সাথে নেয়া যাবেনা ।


  •     বিভিন্ন অস্ত্র ও বিপজ্জনক বিস্ফোরক ধারালো জিনিস যেমন বেলেট কাচি  ইত্যাদি ।
  •      দুর্গন্ধ বের হয় এমন জিনিস যেমন শুটকি মাছ কাঁঠাল ইত্যাদি।
  •     গন্ধ ছড়ায় এমন খাবার যেমন মাংস দুধ ডিম দিয়ে তৈরি কোন খাবার ।
  •     পচনশীল জিনিসপত্র যেমন ফুল-ফল-সবজি ইত্যাদি ।



এয়ারপোর্টে যাওয়ার আগে কিছু কাগজপত্র অবশ্যই নিজের সাথে রাখবেন ।

এগুলো হলো ঃ

  •     পাসপোর্ট
  •     ভিসা
  •     স্বাস্থ্য পরীক্ষার রিপোর্টে
  •     প্রশিক্ষণের সার্টিফিকেট
  •     চাকরির চুক্তিপত্র কাজের অনুমতি পত্র
  •     স্মার্ট কার্ড
  •     বিমানের টিকেট
  •     কোম্পানির নাম কোম্পানির ঠিকানা কোম্পানিতে দায়িত্বরত কর্মকর্তার নাম ও ফোন নম্বর
  •     গন্তব্য দেশে বাংলাদেশি দূতাবাসের ঠিকানা ও ফোন নম্বর কিছুটা গন্তব্য দেশের মুদ্রা





আপনি মনে রাখবেন বিমান ছাড়ার 3 ঘন্টা আগেই বিমানবন্দরে পৌঁছাতে হবে । পোঁছানোর পর আপনি ব্যাক  ও জিনিসপত্র ট্রলিতে নিয়ে নেবেন। বহির্গমন এর গেইট খুঁজে আপনাকে লাইনে দাঁড়াতে হবে ।
এয়ারপোর্টে  গেটের আশেপাশে বিভিন্ন নির্দেশিকা থাকতে পারে নিজের প্রয়োজনে সেগুলো পড়ে নেবেন ।


সিকিউরিটি চেকিং এবং কাস্টমস চেকিং

  1. গেটে  অবস্থানরত সিকিউরিটি অফিসার আপনার পাসপোর্ট , বিমানের টিকেট ও অন্যান্য কাগজপত্র চেক করবে একাজে অফিসারদের সহযোগিতা করুন । 

  2. এরপর আপনার সাথে থাকা সব ব্যাক  স্ক্যানিং করা হবে। 

  3. এজন্য আপনাকে আপনার সাথে থাকা ব্যাগগুলো স্ক্যানিং মেশিন এর স্ক্যান করার জন্য দিয়ে দিতে হবে ।
     আপনার ব্যাগে কোন বিপদজনক জিনিস আছে কিনা এয়ারপোর্টের সিকিউরিটি অফিসার সেটা পরীক্ষা করবে।

  4. ব্যাগ চেক করার পর সিকিউরিটি অফিসার একটা বডি চেকিং  মেশিন দিয়ে আপনার বডি চেক করবে । 





ইমিগ্রেশন এর বাইরের এলাকায় একটি প্রবাসীকল্যাণ ডেস্ক  আছে । এখানে যারা বিদেশে চাকরির জন্য যায় তাদেরকে সাহায্য করা হয় । এয়ারপোর্ট এর বিভিন্ন জায়গায় বড় টিভি স্ক্রীন থাকে।  সেখানে ফ্লাইট নম্বর বিমান ছাড়ার সময় ও কোন দিক দিয়ে যেতে হবে তা উল্লেখ করা থাকে। টিভি স্ক্রীন দেখে ফ্লাইট নম্বর গেট  নম্বর মিলিয়ে নেবেন ।


চেক ইন

  •     কাউন্টারের সিরিয়াল আসলে কাউন্টার অফিসার কে আপনার টিকেট পাসপোর্ট দেখাবেন । 

  •     আপনার কাছে ছোট ব্যাক রেখে  বড় ব্যাগ গুলো কাউন্টারে দেবেন ।

  •     কাউন্টার অফিসারঃ আপনার ব্যাগের স্টিকার লাগিয়ে দেবেন। 

  •      আপনার ব্যাগ কিংবা লাগেজে  স্টিকার লাগানোর সময় অফিসারঃ আপনার টিকেট এর পেছনে একই নম্বরের আরেকটি স্টিকার লাগিয়ে দিবেন।  যেন বিদেশের এয়ারপোর্টে লাগেজ খুঁজে পেতে কোন সমস্যা না হয় ।

  •     এরপর কাউন্টার অফিসারের কাছ থেকে বোর্ডিং কার্ড নিতে হবে । একটু এই কাডে বিমানের সিট নম্বর লেখা থাকবে । 

  •     টিকিটের সাথে যে এম্বর্কেশন কার্ড দেয়া হয়েছিল তা ভালোভাবে বুঝিয়ে পূরণ করবেন।  
  •     যদি টিকেট এর সাথে কারতি না পেয়ে থাকেন তাহলে এয়ারপোর্ট থেকে তা সংগ্রহ করতে পারেন । .



বিদেশের এয়ারপোর্টে ইমিগ্রেশন এর কাজ শেষ করে নিজের ব্যাগ খুঁজে নিতে হবে।  মালামাল বা জিনিস  যেখানে আসে সে কনভেয়র বেলট এর উপরের দেয়ালের এয়ারলাইন্সের নাম ও ফ্লাইট নম্বর  দেয় থাকে। ঐ দেয়ালে এয়ারলাইন্স ফ্লাইট নম্বর মিলিয়ে সঠিক কনভেয়ার বেল্টের সামনে গিয়ে দাঁড়াতে হবে । কনভেয়র বেলট থেকে নিজের ব্যাগ খুজে  নামিয়ে নিতে হবে।  
কোন কারণে ব্যাক  বা লাগেজ  খুঁজে পেতে সমস্যা হলে হারানো জিনিস এর খবর যেখানে জানাতে হয় । মানে লস্ট এন্ড ফাউন্ড দেশ এবং এয়ারলাইন্সের ডেস্ক ।



ইমিগ্রেশন


  1. তার পূরণ করা হয়ে গেলে ইমিগ্রেশনের গেইট খুঁজে লাইনে দাঁড়াবেন ।
  2. ইমিগ্রেশনের অফিসারঃ আপনার টিকেট পাসপোর্ট ও অন্যান্য কাগজপত্র চেক করবে।
  3. ইমিগ্রেশন গেটের ভেতরে আরো একটি প্রবাসীকল্যাণ ডেস্ক পাবেন।         
  4. সেখানে অফিসারঃ আপনার স্মার্ট কার্ড এবং আঙ্গুলের ছাপ যাচাই করে এম্বর্কেশন কার্ড এর উল্টো পাশে একটা শীল দেবেন ।
  5. ইমিগ্রেশন কাউন্টারে লাইনে দাঁড়াবেন এখানে পাসপোর্ট , ভিসা , বিএমইটি ছাড়পত্র এবং নাম্বার এম্বর্কেশন কার্ড জমা দেবেন ।
  6. অফিসার আপনাকে কিছু প্রশ্ন
  7. অফিসার রেকর্ড রাখতে  আপনার একটি ছবি তুলবে ।
  8.  সব কাগজ ঠিক থাকলে অফিসার পাসপোর্টে একটি শীল  দেবে ।



বিমানে বোর্ডিং

টিভির স্ক্রিনে বিমান ছাড়ার সময় থেকে।  আপনার বিমানের অন্যান্য যাত্রীরা যেখানে বসে আছে সেখানে গিয়ে বসবে ।


বিমানে ওঠার জন্য বাংলা ও ইংরেজি উভয় ভাষাতেই ঘোষণা দেয়া হবে 


বিমানে ওঠার ঘোষণা শুনে আপনি লাইনে দাঁড়িয়ে বোর্ডিং কার্ড হাতে নিয়ে  বিমানে উঠবেন ।


এয়ারলাইন্সের অফিসারঃ আপনার পাসপোর্ট বিমানের টিকেট ও অন্যান্য কাগজপত্র চেক করবে।  

      
আপনার কাছে ছোট ব্যাগের কোন বিপদজনক জিনিস আছে কিনা সেটা পরীক্ষা করবে । ব্যাগ চেক করার পর আপনার বডি চেক করবে ।


বিমানে বোডিং কার্ডে লেখা সিট নম্বর দেখে সিট নম্বর মিলিয়ে নির্দিষ্ট সিটে গিয়ে বসবেন।


বিমানে  ভিতর সিট নম্বর খুঁজে পেতে সমস্যা হলে বিমানবালা  এয়ার হোস্টেস জিজ্ঞেস করবেন ।
বসার আগে হাতের ছোট ব্যাগ টি সিটের ওপরে যাত্রা দেয়া বক্সে রাখবেন ।

.
এয়ার হোস্টেস যা বলবে আপনি খুব মন দিয়ে শুনবেন এবং বিমানের সিটে বসে অবশ্যই  সিটে বেল   বাঁধবেন।       

                                                                         ধন্যবাদ


 





Post a Comment

নবীনতর পূর্বতন